অনিয়মে ভরপুর চট্টগ্রামের বাজারগুলো!

প্রকাশ:| রবিবার, ১৪ জুলাই , ২০১৩ সময় ০৭:১২ অপরাহ্ণ

অনিয়ম ও ভেজালে চট্টগ্রামের বাজারগুলো এখন ভরপুর। রমজান শুরুর পর থেকে প্রায় সবধরনের পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে bazarচট্টগ্রামের বাজারগুলোতে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রী এখনো সাধারণের নাগালের বাইরে। এ অরাজক পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রশাসনের বিভিন্ন টিম বাজার মনিটরিং করলেও এর সুফল পাচ্ছে না চট্টগ্রামবাসী। সম্প্রতি বাজার মনিটরিংয়ে যাওয়া টিমের উপর হামলার ঘটনাও ঘটেছে।

এদিকে শনিবার নগরীর বিভিন্ন বাজার মনিটরিং করেছেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক আব্দুল মান্নান। অভিযানকালে তিনি গরু মাংসের পরিবর্তে মহিষের মাংস বিক্রি, দামে হরফের, কাঁচা মরিচ মওজুদ রেখে দাম বৃদ্ধি ও মেয়াদোত্তীর্ণ প্যাকেটজাত মাছ বিক্রি সহ বিভিন্ন অপরাধে বেশ কয়েকজন দোকানীকে মোট ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া একইদিন নগরজুড়ে বিভিন্ন কাঁচাবাজারে জেলা প্রশাসনের আরও ৫টি টিম বাজার মনিটরিংয়ে নামে।

অন্যদিকে বাজার মনিটরিংয়ে যাওয়া টিমের উপর ব্যবসায়ীদের নেতৃত্বে হামলার ঘটনাও ঘটেছে। গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে নগরীর আগ্রাবাদের চৌমুহনী চউক কর্ণফুলী বাজারে বিএসটিআইয়ের ভেজালবিরোধী অভিযান পরিচালনার সময় পুলিশ ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর হামলা চালায় ব্যবসায়ীরা। পরে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ এক ব্যবসায়ীকে আটক করে।

এদিকে রোজার আগের দিন হঠাৎ এক দিনের ব্যবধানে কাঁচা মরিচের দাম উঠে গিয়েছিল ২শ টাকায়। তবে এখন ৪০ টাকা কমে তা বিক্রি হয়েছে ১৫০ থেকে ১৬০ টাকায়। ব্যবসায়ীরা বলছেন, রোজায় ক্রেতাদের চাপ বেশি থাকায় হঠাৎ পণ্যের দাম বেড়েছে। তবে ধীরে ধীরে বাজারমূল্য স্বাভাবিক হয়ে আসছে বলে দাবী তাদের।

নগরীর চৌমুহনী, কর্ণফুলী কমপ্লেক্স, চকবাজার, বহদ্দারহাট ও কাজির দেউড়ি বাজার ঘুরে দেখা গেছে। ফার্মের মুরগীর দাম ২০ টাকা বেড়ে প্রতি কেজি ১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া দেশী মুরগীর দাম ২০টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৩২০ টাকায়। গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ টাকায়। হাঁড়সহ মাংস ৩০০ টাকায়।

সবজির বাজারেও বিরাজ করছে চরম অস্থিরতা। বেঁগুনের দাম কেজিতে ২০ টাকা বেড়ে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া অন্যান্য সবজির মধ্যে বরবটি প্রতি কেজি ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ৪০ টাকা, টমেটো ১৩০ টাকা, করলা ৩০ টাকা, পটল ৩০ টাকা, ঝিঙা ৪০ টাকা, তিতকরলা ৫০ টাকা, আলু ২০ টাকা, নতুন আলু ৩০ টাকা, ঢেরশ ৫০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৪০ টাকা। ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে কেজি ৪৫ টাকায়। উল্লেখিত এসব পণ্য রমজানে ৫ থেকে ২০ টাকা বেড়েছে।

এছাড়া বেশিরভাগ মাছের দাম আছে আগের মত থাকলেও দুই একটিতে ৫ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। নগরীর চকবাজার ঘুরে দেখা গেছে, বড় আকারের রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ২৮০ টাকায়। তেলাপিয়া ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা, কৈ কোরাল ৩৫০ টাকা, রুপচাঁন্দা ২৫০ টাকা, মাঝারি সাইজের ইলিশ ৭৫০ থেকে ৮৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

তবে বাজার ভেদে পণ্যের দামের কিছুটা তারতম্য লক্ষ্য করা গেছে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুল হাসান বলেন, রমজানে নগরীর বিভিন্ন বাজার মনিটরিং অব্যাহত আছে। অনিয়ম পেলে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

চট্টগ্রাম সিটি মেয়র এম. মনজুর আলম বলেন, সিটি কর্পোরেশনের একজন কাউন্সিলরের নেতৃত্বে রমজান মাসে নিয়মিত বাজারমূল্য পর্যবেক্ষণ, তদারকি ও সিটি ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে
বিডিপ্রেস২৪ডটকম


আরোও সংবাদ