অনতিবিলম্বে আসলাম’র নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান উত্তর জেলা বিএনপি

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন , ২০১৬ সময় ১০:৩৬ অপরাহ্ণ

উত্তর জেলা বিএনপি

বসার স্থান ও নাম ঘোষণাকে কেন্দ্র করে উত্তর জেলা বিএনপির ইফতার মাহফিলে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়েছে দুই পক্ষ। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে সিনিয়র নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়। তবে অনুষ্ঠান চলাকালীন বেশ কয়েকবার এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নগরীর পাঁচলাইশ এলাকায় দি কিং অব চিটাগাং কমিউনিটি সেন্টারে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে উত্তর জেলা বিএনপি। সেখানে বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আকবর খন্দকার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও তিনি আসেননি।

অনুষ্ঠান শুরুর আগে বিকেল সাড়ে ৫টায় অনুষ্ঠান স্থলে আসেন অধিকাংশ নেতা। তবে ৬টার পরে মূল অনুষ্ঠান শুরু হয়। এর আগে মঞ্চের ডান পাশে রাখা সংরক্ষিণ টেবিলে বসেছিলেন রাঙ্গুনিয়া উপজেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ফজলুল হক। তাকে ওই টেবিল থেকে উঠে অন্য টেবিলে বসার অনুরোধ জানান উত্তর জেলা যুবদলের সভাপতি কাজী মো.সালাউদ্দিন।

টেবিল থেকে উঠতে বলায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন ফজলুল হক। প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে উত্তেজিত হয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে সালাউদ্দিনের দিকে তেড়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এসময় উপস্থিত নেতা-কর্মীরা তাকে শান্ত করে। এরপরও তিনি বারবার উত্তেজিত হয়ে পড়েন। মঞ্চ থেকে অনুষ্ঠানের শৃঙ্খলা বজায় রাখায় জন্য ঘোষণা দেওয়া হলেও সেদিকে কেউ কর্ণপাত করেনি।

এদিকে উত্তর জেলা বিএনপির ব্যানারে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হলেও সেখানে উপস্থিত ছিলেন না আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব আবদুল্লাহ আল হাসান। কমিটির আহ্বায়ক আসলাম চৌধুরী দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্রের অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। আসলাম চৌধুরী পক্ষের লোকজন ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে। ফলে সদস্য সচিব পক্ষের লোকজন আসেননি বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আহ্বায়ক কমিটি গঠনের কিছুদিন পর থেকেই বিভিন্ন উপজেলা, থানা, পৌরসভা ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন নিয়ে আসলাম চৌধুরী ও আবদুল্লাহ আল হাসানের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে কেন্দ্র থেকে কমিটি গঠনের একক দায়িত্ব দেওয়া হয় আসলাম চৌধুরীকে।

বিশৃঙ্খলার বিষয়ে ইফতার মাহফিল আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক এমএ হালিম বলেন, মঞ্চের পাশে কয়েকটি টেবিল মূলত অতিথিদের জন্য সংরক্ষিত ছিল। আমাদের দলীয় লোক হিসেবে ফজলুল হককে অন্য টেবিলে বসার অনুরোধ করেছিল সালাউদ্দিন। বিষয়টি তিনি হয়তো অন্যভাবে নিয়েছেন। দু’জনের মধ্যে কিছুটা ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে।

এদিকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত জেলার বিভিন্ন থানা পর্যায়ের নেতাদের নাম ঘোষণা না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেকে। অতিথিদের বক্তব্যের মধ্যে বেশ কয়েকবার চিৎকার দিয়ে প্রতিবাদ জানান তারা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট কবির চৌধুরী। এতে সভাপতিত্ব করেন উত্তর জেলা বিএনপি নেতা এমএ হালিম।

অন্যান্যের মধ্যে মহিলা নেত্রী নুরী আরা সাফা, উত্তর জেলা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি চাকসু ভিপি নাজিম উদ্দিন, উত্তর জেলা বিএনপি নেতা অধ্যাপক ইউসুফ চৌধুরী, উত্তর জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক নুর মোহাম্মদ, আবদুল আউয়াল চৌধুরী, মোস্তফা জসিম উদ্দিন, উত্তর জেলা যুবদলের সভাপতি কাজী মো.সালাউদ্দিন, উত্তর জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক সরওয়ার উদ্দিন সেলিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।