অটোরিকশা চালকদের হাতে দুই শিক্ষার্থী মারধরের শিকার

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি , ২০১৬ সময় ১১:০৮ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালকদের হাতে দুই শিক্ষার্থী মারধরের শিকার হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার পর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্বরে এবং সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালকেরা রেলবিট এলাকায় বিক্ষোভ করেন। মঙ্গলবার দুপুর দেড়টায় এ ঘটনা ঘটে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বর থেকে এক নম্বর ফটকে যেতে অপেক্ষা করছিলেন তুষার নামের এক শিক্ষার্থী।এ সময় একটি অটোরিকশা তার পায়ে চাপা দেয়।তুষার অটোরিকশা চালককে দেখেশুনে গাড়ি চালাতে বলেন।

পরে অটোরিকশা করে তুষার এক নম্বর ফটক এলাকায় পৌঁছালে তাকে মারধর করতে থাকে অটোরিকশা চালকেরা। এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত সায়ন নামের আরেক শিক্ষার্থী তুষারকে মারধরের কারণ জানতে চাইলে তাকেও মারধর করা হয়।

দুই শিক্ষার্থীকে মারধরের বিষয়টি ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে ছাত্রলীগের কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা বিষয়টি সমাধানের জন্য এক নম্বর ফটক এলাকায় গেলে তাদের ইটপাটকেল মেরে ধাওয়া দেন অটোরিকশা চালকেরা। এরপর ছাত্রলীগ কর্মীরাও জড়ো হয়ে গোল চত্বর এলাকায় অপেক্ষামান অটোরিকশা চালকদের ধাওয়া দেন।

পরে অটোরিকশা চালকেরা রেলবিট এলাকায় গিয়ে রাস্তার ওপর অবরোধ সৃষ্টি করেন। অন্যদিকে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুলানোর চেষ্টা করেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরীর আশ্বাসে উভয়পক্ষই তাদের কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর হেলাল উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, ‘শিক্ষার্থী ও অটোরিকশা মালিকদের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি।বিষয়টি এক প্রকার সমাধান হয়ে গেছে।রাত নয়টায় দুই পক্ষের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের আবারও বৈঠক রয়েছে। বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।’